White Hat SEO এবং Black Hat SEO কি?

SEO(Search Engine Optimization) শব্দটির সাথে যারা পরিচিত তারা অবশ্যই Link Building সম্পর্কেও বহুবার শুনে থাকবেন । কিন্তু Black Hat SEO নিয়ে কদাচিৎ আলোচনা হয়ে থাকে কারণ সবাই এটিকে এড়িয়ে চলতে চায়। কিন্তু যত বড় বড় অনলাইন প্রফেশনালরা আছেন যারা মার্কেটিং এর সাথে জড়িত তাদের বেশির ভাগ মানুষই নিজেদের সাইটের কোয়ালিটি বাড়ানোর জন্য যেমন Link Building করেন ঠিক তেমন ভাবেই Black Hat SEO-ও করে থাকেন। কিন্তু কোন অনলাইন ট্রেনিং সেন্টার অথবা ভিডিও টিউটোরিয়ালে Black Hat SEO নিয়ে বিশেষভাবে কিছু বলে না।


White Hat SEO

হোয়াইট হ্যাট এসই মূলত সার্চ ইনজিনের সমস্ত নিয়ম মেনে করা হয়। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নীতিটি হচ্ছে “আপনার ওয়েবসাইট মানুষের কল্যাণের জন্য তৈরী করুন ,সার্চ ইনজিনের জন্য নয়”। Back Link , Keyword Stuffing , Link Popularity, Link Building ইত্যাদি হলো হোয়াইট হ্যাট এসইও। White Hat SEO-কে এথিক্যাল SEO বলা যায়।


Link Popularity


সার্চ রেজাল্টের কত নম্বর পেজে ওয়েবসাইটটি থাকবে তা নির্ধারণ করা হয় লিংক পপুলারিটির সাহায্যে। মূলত ব্যাকলিংকের সংখ্যার উপর এই লিংক পপুলারিটি নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।


Internal Link


কোন একটি পোস্টের ভেতর অন্যান্য পোস্টের লিংক ব্যবহার করা হলে তাকে ইন্টারনাল লিংক বলা হয়। যেমন ধরুন আমি এখন লিখলাম “ইন্টারনাল লিংক ব্লাক হ্যাট এসইও নয় ” বরং এটি White Hat SEO। ব্ল্যাক এসইও কথাটির মাধ্যমে আমি আমার পূর্বোক্ত Black Hat SEO বিষয়ক পোস্টের লিংক দিয়ে দিলাম। এইভাবে একটা ইন্টারনাল লিংক তৈরি হবে। ইন্টারনাল লিংক এসইওর জন্য খুবই ফলপ্রসূ । এতে Page Ranking বাড়ে।


Outbound Link


আউটবাউন্ড লিংক ব্যাকলিংকের সম্পূর্ণ বিপরীত। অর্থ্যাৎ অন্য কোন সাইটের লিংক যদি আপনার সাইটে থাকে তা হবে আউটবাউন্ড লিংক। আউটবাউন্ড লিংক কে Outgoing LInk-ও বলা হয়। এটিও White Hat SEO ।


Back Link

ব্লগ কমেন্ট, ফোরাম পোস্টিং ইত্যাদির মাধ্যমে আপনার Website URL-টি অন্যান্য ওয়েবসাইটে দিয়ে দেওয়া হয়, ফলে অন্যান্য ওয়েবসাইটেও আপনার ওয়েবসাইটের ইউআরএলটি খুঁজে পাওয়া যায়। এই পদ্ধতিটি হল Back Link পদ্ধতি। এক্ষেত্রে হোম পেজ বা অন্য যে কোন পেজের লিংক দেওয়া যেতে পারে। ব্যাক লিংককে Incoming Link বা Inbound Link-ও বলে। এটি White Hat SEO-এর মধ্যে পড়ে। ওয়েব সাইটে ভিজিটর আনার জন্য ওয়েব সাইটের লিংক বিভিন্ন মাধ্যমের সাহায্যে ছড়িয়ে দেওয়াকে Back Link বলে। যেকোন সাইটের গুরুত্ব ও গ্রহনযোগ্যতা বাড়াতে Back Link বড়ানোর কোন বিকল্পই হয় না। এক একটি Back Link আপনার জন্য ভোট স্বরূপ। এর জন্য সার্চ ইনজিন সবসময় খুজে বেড়ায় কোন সাইটের Back Link বেশি। কেননা আপনি ও হয়তো কখনো চাইবেন না একজন অযোগ্য প্রার্থীকে একটি গুরুত্বপূর্ণ আসনে বসাতে। সেই কারণে সার্চ ইনজিনও তাদের প্রথম পেজটির জন্য বেশি গুরুত্ব দেয় Back Link-কে।


Black Hat SEO

মূলত সার্চ ইনজিন প্রথম পেজে থাকার জন্য SEO-র নিয়ম না মেনে Black Hat SEO করা হয়। Keyword Stuffing, Clocking, Doorway Pages, Invisible Text, Spaming Backlink-এর মাধ্যমে Black Hat SEO করা হয়। এধরণের এসইও আনএথিক্যাল এসইও নামেও পরিচিত। ব্ল্যাক হ্যাট এসইও করার সবচেয়ে বড় সমস্যাটা হল আপনার ওয়েবসাইটটি সার্চ ইনজিন-এর তালিকা থেকে বাতিল হয়ে যেতে পারে। সুতরাং সবসময় এটিকে এড়িয়ে চলুন এবং এসইওর নিয়ম কানুন মেনে SEO করুন।


Link Firm


ধরা যাক ১২ টি ওয়েবসাইট তৈরি করা হল এবং Backlink বাড়ানোর জন্য প্রতিটি ওয়েবসাইটের লিংক অপর ওয়েবসাইটে দিয়ে দেওয়া হয়। এভাবে সবকটি ওয়েবসাইটের Backlink বাড়ানোর এই পদ্ধতিটিই হল Link Firm। সার্চ ইনজিনের কাছে এধরণের কাজ স্প্যাম হিসেবে পরিগণিত। কাজেই সার্চ ইনজিনের কাছে ধরা পড়লে সাইটটি SEO লিস্ট থেকে বাদ হয়ে যাবে।


Doorway Page


সার্চ রেজাল্টের প্রথমে আসার জন্য Keyword নির্বাচন করে আপনার ব্লগে একটি Article লিখলেন , অথচ Article পড়তে অন্য কোন ওয়েবসাইটের URL বসিয়ে দিলেন। এর ফলে ভিজিটর সার্চ দিয়ে আপনার সাইটে প্রবেশ করলেও তাকে তথ্যটি পেতে অন্য কোন ওয়েবসাইটে রিডাইরেক্ট করে দেওয়া হচ্ছে, এটিকে Doorway Page বলা হয়। এটি এক ধরনের Black SEO।


Invisible Text


এটিও এক ধরণের Keyword Stuffing পদ্ধতি। ওয়েবসাইটের ব্যাকগ্রাউন্ড কালারের সাথে ম্যাচ করে কীওয়ার্ড এর মাত্রাধিক ব্যবহার করা হল, অপরদিকে টেক্সট কালার আর ব্যাকগ্রাউন্ড কালার একই রকম হওয়ায় তা ভিজিটর দেখতে পাচ্ছে না ঠিকই কিন্তু সার্চ ইঞ্জিনকে তা পড়তে বাধ্য হচ্ছে । এটি Blac Hat SEO-র অন্তর্ভূক্ত।


Keyword Stuffing


আর্টিক্যালে কাজের জিনিস না রেখে কেবল কীওয়ার্ড এর ছড়াছড়ি বা গাদাগাদি করে রাখাটাই হলো Keyword Stuffing। মূলত কীওয়ার্ড স্টাফিং করে আপনি সার্চ রেজাল্টের প্রথমে আসতে পারলেও এটি যখন সার্চ ইনজিনের নজরে আসবে তখন আপনার সাইটটি সার্চ ইনজিন থেকে বাদ পড়ে যেতে পারে। অতএব সর্বদাই এ কাজ করা থেকে বিরত থাকুন। মান সম্পন্ন আর্টিক্যাল লিখুন এবং Keyword Density বজায় রেখে আর্টিক্যাল লিখুন।


Clocking


ক্লকিং হলো এমন একটা টেকনিক বা পদ্ধতি যেটা সার্চ ইনজিনকে এক ধরনের কনটেন্ট দেখায় আর ইউজারকে অন্যরকম কনটেন্ট দেখায়। এখানে সার্চ ইনজিনের কাজ করে মানুষ এবং তার সাথে সার্চ ইনজিনের bot/ crawler/ spider/ scooter । ক্লকিং পদ্ধতিটিতে যখন সার্চ ইনজিনের সার্ভারে কোন পেজের জন্য রিকোয়েস্ট যায় তখন এই টেকনিকের সাহায্যে IP Address বা User Agent দেখে বোঝা যায় যে এটা কোনো সার্চ ইনজিনের bot/ crawler/ spider/ scooter নাকি কোনও মানুষের। যখন দেখে Spider তখন এক ধরনের পেজ দেখায় আর মানুষ হলে আর এক ধরনের পেজ। এটি একধরনের Blac Hat SEO


Keyword Density


একটা পোস্টে কোন একটা নির্দিষ্ট কিওয়ার্ড কতবার ব্যবহৃত হয়েছে সেটি হলো Keyword Density বা ঘনত্ব। প্রতি ১০০ শব্দে আপনার নির্ধারিত Keyword-টি কমপক্ষে ৩ বার ব্যবহার করুন।


পেজ র‍্যাঙ্ক কি(Page Rank)?


একটি ওয়েব সাইট এর প্রতিটি পেজ এর গুরুত্ব গুগল Page Rank-এর মাধ্যমে পরিমাপ করে থাকে । গুগল সার্চ ইনজিন এ আমরা যখন সার্চ কিছু সার্চ করার পর যে সার্চ রেজাল্ট দেখতে পাই তার বেশিরভাগটাই Page Rank- এর উপর নির্ভর করে থাকে । Page Rank-এর উদ্ভাবন করেন গুগল এর জনক ল্যারি পেজ এবং সারজে ব্রিন । এটি নির্ভর করে Backlink , Keyword Density-র মত কিছু বিষয়ের উপর । গুগুল ধরে নেয় যে যখন একটি সাইট অপর একটি সাইটের লিঙ্ক ব্যভার করার অর্থ অপর সাইটিকে একটি ভোট দেওয়া। তাই আপনার সাইটের জন্য যত বেশি ভোট থাকবে গুগুলের কাছে সেটির গুরুত্ব তত বেশি বৃদ্ধি পাবে।


Page Rank মাপার জন্য অনেক টুল এবং Add-ons আছে, যার মাধমে জানতে পারা যায় কোন সাইটের কেমন Page Rank । নিচে ফায়ার ফক্সের একটা ADD-Ons দেওয়া হল , যেটি মাত্র ৭কেবি এর, এটি Install করে পিসি রিস্টার্ট দিলেই ব্রাউজারে গেলেই Page Rank দেখতে পাওয়া যাবে ।


https://addons.mozilla.org/…/webrank-toolbar-pagerank-alexa/


অথবা ফায়ার ফক্স ব্রাউজারে TOO গিয়ে ADd-ons অপশন এ গিয়ে সার্চ বক্সে webrank toolbar লিখে সার্চ দিলেও Page Rank পাওয়া যাবে।


অ্যালেক্সা কি(Alexa Rank)?


ক্যালিফোর্নিয়ার আমাজন সাইটের একটি সাবসিডিয়ারি সাইট হল Alexa.com । এই ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়। সাইটটি ১৯৯৬ সালে চালু হয়। ওয়েব বিশেষজ্ঞদের মতে, অ্যালেক্সায় কোনও সাইট প্রথম ১,০০,০০০-এর মধ্যে থাকলে সেই রিপোর্ট প্রকৃতপক্ষে ভুল হয়ে থাকে। Alexa-র তথ্য ১০০ ভাগ নিরপেক্ষ নয়, যারা অ্যালেক্সা টুলবার ব্যবহার করেন কেবল সেইসব ভিজিটরদেরই র‍্যাঙ্কিং-এর আওতায় আনা হয়, এই কারণে বিশ্বনন্দিত। SEO-তে সাধারণভাবে Alexa-র এর তেমন চাহিদা না থাকলেও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে । উদাহরন স্বরূপ আপনার যদি কোন ওয়েব সাইট থাকে এবং আপনি তা বিক্রয় করতে চান তখন আপনার বায়ার বা ক্রেতা বেশ কিছু বিষয় এর উপর নির্ভর করে আপনার সাইট কে পর্যালোচনা করবে এবং দাম নির্ধারণ করে। এক্ষেত্রে ভাল Alexa র‍্যাঙ্ক থাকলে ভাল দাম পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে, কারণ ক্রেতার মনে হয় যে সাইটটি একটি কোয়ালিটি সাইট এবং এতে ভাল ভিসিটর আছে।


Upwork(upwork.com) সহ অন্য মার্কেট প্লেসে আপনি যদি SEO এর কাজ করতে চান তাহলে আপনাকে নিচের বিষয়গুলি ভাল করে জানতে হবে। নিচের এই কাজগুলিকে link building এর কাজ বলা হয়। লিংক বিল্ডিং এর অপর নাম হল ব্যাকলিঙ্ক।


Blog comments,

Social Bookmarking,

Directory Submission,

Forum Posting,

Social networking,

Article Submission,

Google Analytic,

Keyword research,

web 2.0,

SEO Audit,

Onpage SEO


#whitehatseo #blackhatseo #linkbuilding #seo #pageranking #alexarank #kolkatapanda


42 views0 comments
  • download (8)

Copyright © bunonindia. All rights reserved.